আজঃ ৪ঠা ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ - ১৯শে আগস্ট ২০১৮ ইং - রাত ১:০৫

শেখ হাসিনা’র জাকির’দের ঠকানো যায় কিন্তু হারানো যায় না

Published: এপ্রি ১৬, ২০১৮ - ৯:৪৭ অপরাহ্ণ

এম মোজাব্বীর আলী::ছাত্রলীগের ইতিহাসে সিলেট থেকে ১৯৮৬ সালে সুলতান মুহাম্মদ মুনসুর এর পর দীর্ঘ ২৮ বছরের যাত্রাবিরতিতে সিলেটের ছাত্ররাজনীতির মহাকাশের গতি পরিবর্তনের লক্ষে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কেন্দ্রীয় মসনদে বসেন সিলেটের রত্ন কুবের এস এম জাকির হোসাইন ।

দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে সততা, নিষ্টা, মানবতা, ভালবাসা ও এ জাতীয় মহামানবীয় গুনাবলীকে নিত্যসঙ্গী করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য ছুটে চলেছেন স্বাধীন বাংলার দিক থেকে দিগান্তরে ।নেতৃত্ব শুরু হওয়ার পর থেকে গোটা বাংলাদেশের ছাত্রলীগ বিশেষ করে সিলেটের সুবিধাবাদী ছাত্রলীগেরা ভাই ভাই বলে নিজেকে মহাপুরুষ জাহির করার প্রলোভনায় ব্রথ ছিল । আজ সেই সুযোগ সন্ধানীরা লেশহীন ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিদ্রোহী হয়ে নোবেল নেওয়ার অপচেষ্টায়ও অকালপক্ষ।কিন্তু আপনাদের সেই স্বপ্নের নোভেল অধরাই থেকে যাবে।মানুষের সবকিছু ধ্বংস করা যায় না।একজন মানবতার ফেরিওয়ালাকে ধ্বংস করতে পারবেন না । ভূলে যাবেন না এই সেই জাকির হোসাইন যে সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা সাজলু লস্করের ফেসবুক status দেখে বিউটি রাণী দাস, রুমার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এছাড়া আলিমুল এবং অসংখ্য ছোটখাটো নাম যারা সহায় সম্ভলহীন মানুষ ধরণীর রঙ্গিন আলো উপভোগ করতে পারেনি অন্ধকার আর কষ্ট যাদের নিত্য সঙ্গি ছিল সেই মানুষদের চিকিৎসা করে বসুমতিতে নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন যুগিয়েছিল।

গত কয়দিন হল শীতের দিনে আপনে আমি দামী কম্বল গায়ে দিয়ে আরামদায়ক রাত্রীযাপনে ব্যস্ত তখনও ঐ মানুষটি বস্তির নোংরা কুটিরে জন্ম নেওয়া মানুষ গুলোকে শীতের প্রলাপ থেকে মুক্তি দিয়ে স্বস্তির নিশ্বাসে কর্মব্যস্ত ছিল । জাকির হোসাইনরা আমাদের মত স্বার্থপরদের বাহবা নেওয়ার জন্য জন্মায়নি। এরা ক্ষনজন্মা, মৃত্যুঞ্জয়ী, অবিনশ্বর,কালজয়ী এ জাতীয় আধ্যাত্বিক শব্দ গুলোকে জয় করার জন্য মিথ্যের বাজারে সত্যের পতাকা নিয়ে হামাগুড়ি দিয়ে বিজয় নিষাণ উড়ায় । মনে রাখবেন আজ আপনারা যারা সিন্ডিকেটের কালো খপ্পরে পড়ে মানবতার মানচিত্রকে ICUতে রেখে নগ্ন উল্লাসে ব্যস্ত । দুদিন পর সময় আমার ঘুরে দাঁড়াবে , শেখ হাসিনার শুভ্র ছায়ায় যখন এস এম জাকির হোসাইন আপনাদের সিন্ডিকেটের স্বার্থবাদী আকাশচুম্বী স্বপ্নকে ম্লান করে রঙ্গমঞ্চে উটে আবার সাধারণ মানুষদের কুহুসুর তুলবে, জয় বাংলার গান গাইবে তখন নির্লজ্জের মত স্যার স্যার বলে নাড়িভূড়ী ছিড়ে ফেললে ও কাজ হবেনা ।

আপনাদের মত মোশতাকরা হারিয়ে যাবে ঐই সব অবহেলিত সাধারণ মানুষদের পদধূলীতে । মনে রাখবেন শেখ হাসিনার জাকিরদের টকানো যায় কিন্তু হারানো যায় না, জাকিরদের কেউ হারাতে পারবে না, কেউ না । এরা বাংলার সম্পদ ,জয় বাংলার সম্পত্তি । ধিক জানাই ঐই সকল খন্দকার, জাফর,হিটলার,মুসালীনীর উত্তরসূরীদের যাদের অস্তিত্ব অচিরেই ডুবে যাবে সভ্যদের আলোর আভায় ।

সিলেটবাসীর রত্ন তুমি সাধারণে ভাই
অসাধারণ এক মানুষ তুমি ভূলে থাকারনাই”

লেখক:এম মোজাব্বীর আলী,রাজনৈতিক কর্মী।

Facebook Comments

আরো খবর

বাংলাদেশ এবং বঙ্গবন্ধু... ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল :: ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট দিনটির কথা আমার এ...
সমাজের মারাত্মক দুরারোগ্য রোগ হলো ধর্ষণ... সায়মা শাহরিন সাদিয়া :: এক সময়ে দুরারোগ্য অনেক রোগেরই আমরা মুখো...
আদরের রাসেল জাফর ওয়াজেদ::বাসায় ফিরে ঘরে ঢুকে বাবা প্রথমেই তাকে খুঁজতেন। ভর...
নিষ্ঠুর পৃথিবীতে মেয়েদের কান্না!... এনামুল হক::একটি মেয়ে, একটি বোন, একজন নারী, একজন গৃহবধু, একজন ...
শোকাবহ আগস্ট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু ,, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজি...

এম মোজাব্বীর আলী::ছাত্রলীগের ইতিহাসে সিলেট থেকে ১৯৮৬ সালে সুলতান মুহাম্মদ মুনসুর এর পর দীর্ঘ ২৮ বছরের যাত্রাবিরতিতে সিলেটের ছাত্ররাজনীতির মহাকাশের গতি পরিবর্তনের লক্ষে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কেন্দ্রীয় মসনদে বসেন সিলেটের রত্ন কুবের এস এম জাকির হোসাইন ।

দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে সততা, নিষ্টা, মানবতা, ভালবাসা ও এ জাতীয় মহামানবীয় গুনাবলীকে নিত্যসঙ্গী করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য ছুটে চলেছেন স্বাধীন বাংলার দিক থেকে দিগান্তরে ।নেতৃত্ব শুরু হওয়ার পর থেকে গোটা বাংলাদেশের ছাত্রলীগ বিশেষ করে সিলেটের সুবিধাবাদী ছাত্রলীগেরা ভাই ভাই বলে নিজেকে মহাপুরুষ জাহির করার প্রলোভনায় ব্রথ ছিল । আজ সেই সুযোগ সন্ধানীরা লেশহীন ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিদ্রোহী হয়ে নোবেল নেওয়ার অপচেষ্টায়ও অকালপক্ষ।কিন্তু আপনাদের সেই স্বপ্নের নোভেল অধরাই থেকে যাবে।মানুষের সবকিছু ধ্বংস করা যায় না।একজন মানবতার ফেরিওয়ালাকে ধ্বংস করতে পারবেন না । ভূলে যাবেন না এই সেই জাকির হোসাইন যে সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা সাজলু লস্করের ফেসবুক status দেখে বিউটি রাণী দাস, রুমার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এছাড়া আলিমুল এবং অসংখ্য ছোটখাটো নাম যারা সহায় সম্ভলহীন মানুষ ধরণীর রঙ্গিন আলো উপভোগ করতে পারেনি অন্ধকার আর কষ্ট যাদের নিত্য সঙ্গি ছিল সেই মানুষদের চিকিৎসা করে বসুমতিতে নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন যুগিয়েছিল।

গত কয়দিন হল শীতের দিনে আপনে আমি দামী কম্বল গায়ে দিয়ে আরামদায়ক রাত্রীযাপনে ব্যস্ত তখনও ঐ মানুষটি বস্তির নোংরা কুটিরে জন্ম নেওয়া মানুষ গুলোকে শীতের প্রলাপ থেকে মুক্তি দিয়ে স্বস্তির নিশ্বাসে কর্মব্যস্ত ছিল । জাকির হোসাইনরা আমাদের মত স্বার্থপরদের বাহবা নেওয়ার জন্য জন্মায়নি। এরা ক্ষনজন্মা, মৃত্যুঞ্জয়ী, অবিনশ্বর,কালজয়ী এ জাতীয় আধ্যাত্বিক শব্দ গুলোকে জয় করার জন্য মিথ্যের বাজারে সত্যের পতাকা নিয়ে হামাগুড়ি দিয়ে বিজয় নিষাণ উড়ায় । মনে রাখবেন আজ আপনারা যারা সিন্ডিকেটের কালো খপ্পরে পড়ে মানবতার মানচিত্রকে ICUতে রেখে নগ্ন উল্লাসে ব্যস্ত । দুদিন পর সময় আমার ঘুরে দাঁড়াবে , শেখ হাসিনার শুভ্র ছায়ায় যখন এস এম জাকির হোসাইন আপনাদের সিন্ডিকেটের স্বার্থবাদী আকাশচুম্বী স্বপ্নকে ম্লান করে রঙ্গমঞ্চে উটে আবার সাধারণ মানুষদের কুহুসুর তুলবে, জয় বাংলার গান গাইবে তখন নির্লজ্জের মত স্যার স্যার বলে নাড়িভূড়ী ছিড়ে ফেললে ও কাজ হবেনা ।

আপনাদের মত মোশতাকরা হারিয়ে যাবে ঐই সব অবহেলিত সাধারণ মানুষদের পদধূলীতে । মনে রাখবেন শেখ হাসিনার জাকিরদের টকানো যায় কিন্তু হারানো যায় না, জাকিরদের কেউ হারাতে পারবে না, কেউ না । এরা বাংলার সম্পদ ,জয় বাংলার সম্পত্তি । ধিক জানাই ঐই সকল খন্দকার, জাফর,হিটলার,মুসালীনীর উত্তরসূরীদের যাদের অস্তিত্ব অচিরেই ডুবে যাবে সভ্যদের আলোর আভায় ।

সিলেটবাসীর রত্ন তুমি সাধারণে ভাই
অসাধারণ এক মানুষ তুমি ভূলে থাকারনাই”

লেখক:এম মোজাব্বীর আলী,রাজনৈতিক কর্মী।

Facebook Comments

আরো খবর

বাংলাদেশ এবং বঙ্গবন্ধু... ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল :: ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট দিনটির কথা আমার এ...
সমাজের মারাত্মক দুরারোগ্য রোগ হলো ধর্ষণ... সায়মা শাহরিন সাদিয়া :: এক সময়ে দুরারোগ্য অনেক রোগেরই আমরা মুখো...
আদরের রাসেল জাফর ওয়াজেদ::বাসায় ফিরে ঘরে ঢুকে বাবা প্রথমেই তাকে খুঁজতেন। ভর...
নিষ্ঠুর পৃথিবীতে মেয়েদের কান্না!... এনামুল হক::একটি মেয়ে, একটি বোন, একজন নারী, একজন গৃহবধু, একজন ...
শোকাবহ আগস্ট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু ,, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজি...