একজন আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী ও সিলেটের দধীচি  রাজনীতিবীদরা…

সিলেট জেলা ছাত্রলীগ নেতা এম মোজাব্বীর আলীর ফেইসবুক ওয়াল থেকে নেয়া।
আমি খুব ভাল লিখতে জানিনা, কিন্তু আওয়ামীলীগ নিয়ে লিখতে গেলে কলমের মাথায় স্বয়ংক্রীয় ভাবে  উল্লাসের শক্তি জাগ্রত হয়। যাইহোক, কাজের কথায় আসি আমি রাজনীতি খুব বুঝিনা, তবে রাজনীতিতে ভাল মন্দের মিশ্রণ আছে এটা সত্য, তারই ধারাবাহিকতায় সিলেটের মিশ্র রাজনীতির যোগ-বিয়োগের বর্ণণা।এই সিলেটের  অভিভাবক আ.ন.ম শফিক, এ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, এ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ এবং সিলেটের নগর পিতা বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান এদের নিয়ে লেখা বা কৃতজ্ঞতা জানানোর শক্তি আমার কলমের ক্ষুদ্র লেখনীতে নেই ।আপনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে লিখতে যাচ্ছি,  সিলেট শহরের আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে একজন সত্যিকারের মুজিব প্রেমী জীবন যৌবনের রঙ্গিন দিন গুলো বিলিয়ে দেয়া ব্যক্তি হচ্ছেন দাদা #বিধান কুমার সাহা, আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করতে দুর্দিনে যুদ্ধ করে সকল প্রতিকূলতা মোকাবেলা করে ঠিকে থাকা সৈনিকের নাম দাদা #এ্যাডভোকেট রনজিত সরকার। এই সিলেটের রাজনীতিতে আপাদমস্তক সমাজসেবী বল আর রাজনীতিবিদ হিসেবে খ্যাত #আসাদ উদ্দিন আহমেদ, #সফিউল আলম চৌধুরী নাদেল,সিসিকের জনপ্রিয় কাউন্সিলর #আজাদুর রহমান আজাদ, এ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান,শফিকুর রহমান সহ নাম না বলা অনেক আওয়ামীলীগ প্রিয় সকল ব্যক্তিদের অবদান অনস্বীকার্য।
এবার লিখতে যাচ্ছি একজন মানুষকে নিয়ে যাকে আমি কাছে থেকে পর্যবেক্ষণ করেছি, হাজারো রাজনীতিবীদ তথা ছাত্রজনতার অনুপ্রেরণা রাজনীতির বরপূত্র সিলেটের আলাদ্বিনের চেরাগ জনতার নেতা জননেতা জনাব #আনোয়ারোজ্জামান চৌধুরী। এই নেতাকে নিয়ে লিখতে কলমের গোড়ায় উপযুক্ত শব্দ পাব কিনা জানিনা তারপর একটু প্রচেষ্টা। সিলেটের ঝীর্ণ এক কুঠির থেকে জন্ম নেয়া এই নেতা কর্মীর প্রতি ভালবাসা,উদারতা ও মহানুভবতার এক মূর্ত প্রতীক। সততা এবং জনগনের ভালবাসাকে পুঁজি করে সকল অসহনিয়, অবাস্তব,অসত্য এবং অন্যায়কে বিলীন করাই যেন তার সময় এবং স্বপ্নের সারথী হয়েছে ।দেখেছি এবং শুনেছি অন্ধকারে অর্থ্যাৎ পরকাছে উনার বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ, অযৌক্তিক এবং বানোয়াট কথাবলা বিভিন্ন নেতা নামধারী ব্যক্তিরা উনাকে নস্মাৎ করার বৃথা চেষ্টা করে আবার এরা স্বার্থ হাসিলের জন্য উনার কাছে যায়। উনি ও সেই নেতা যে কিনা মানবতা, ভালবাসা আর বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করেন বলেই অকপটে সব ভূলে গিয়ে এদের ভালবাসেন।
এভাবেই আওয়ামীলীগকে ভালবেসে বঙ্গবন্ধু পরিবারের একনিষ্ট হয়ে শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসেবে নিজেকে সপে দিয়ে তিনি আজ বর্হিঃবিশ্ব আওয়ামীলীগের গুরু হিসিবে সর্বজন স্বীকৃত। ভালবাসি আজন্ম এমন বঙ্গবন্ধুর আওয়ামীলীগ প্রিয় ব্যক্তিকে।  রাজনীতি এবং চলার পথের অনুপ্রেরণা, নেতা সবকিছুতেই বহমান থাকবেন আপনি ।
বিঃদ্রঃ কেউ এই লেখাকে বিকৃত মস্তিষ্কে বিশ্লেষন করার চেষ্টা করবেন না । গ্রুপিং বিদ্বেষ হিসেব না করেই মনের অনুভূতি প্রকাশের প্রচেষ্টা।ভালথাকুক সিলেটের রাজনীতি জন্ম হোক নবীন যোগ্য নেতাদের।
লেখকঃএম মোজাব্বীর আলী
সিলেট জেলা ছাত্রলীগ নেতা।

Leave a Reply