আজঃ ৩রা কার্তিক ১৪২৫ - ১৮ই অক্টোবর ২০১৮ - সকাল ১০:১৪

ইসকন মন্দির হচ্ছে ধর্মীয় সম্প্রীতির উৎকৃষ্ট স্থান

Published: জুলা ১৮, ২০১৮ - ৯:২১ অপরাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক:: সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান অনুষ্ঠান শ্রী শ্রী জগন্নাথদেবের রথযাত্রা মহোৎসবের ৫ম দিন বুধবার নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে অতিবাহিত হয়েছে। ইসকন মন্দির সিলেট আয়োজিত রথযাত্রা উৎসবে প্রতিদিনই ঘটছে মিলন মেলা। পালন করা হচ্ছে নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান। বুধবার অন্যান্য অনুষ্টানের মধ্যে ছিল আলোচনা সভা।

বিকালে ভক্তিবেদান্ত গীতা একাডেমি আয়োজিত আলোচনা সভায় আশির্বাদকের বক্তব্য দেন, বৃন্দাবন ইসকন কৃষ্ণ বলরাম মন্দির থেকে আগত শ্রীমৎ ভক্তি আশ্রয় বৈষ্ণব স্বামী মহারাজ। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সন্দ্বিপ কুমার সিনহা। এ সময় তিনি বলেন, সিলেট ইসকন মন্দির হচ্ছে ধর্মীয় সম্প্রীতির উৎকৃষ্ট স্থান। এখান থেকে মানুষ তার বিবেককে জাগ্রত করতে পারে। তিনি বলেন, দেশ আজ নানা ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদেরকেও এগিয়ে যেতে হবে। সামনে যাওয়া ছাড়া কোনো গতি নেই।

ইসকন সিলেটের অধ্যক্ষ নবদ্বীপ দ্বিজ গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারীর সভাপতিত্বে ও ইসকন সিলেট ইয়ুথ ফোরামের সাধারণ সম্পাদক দেবামৃত নিতাই দাসের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য দেন, সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক নিবাস চন্দ্র দাস, বিএডিসির উপপরিচালক সুপ্রিয় পাল, সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি জামান মনির, গীতা একাডেমির পরিচালক অশেষ কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী প্রমুখ।

এছাড়া সন্ধ্যা ও রাতে আরতি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ দিনের কর্মসূচির মধ্যে নাটক, সেমিনারসহ আরতী, হরিনাম সংকীর্ত্তন, মহাপ্রসাদ বিতরণ, কীর্তনখোলা, ভক্তিমূলক সঙ্গীত, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, শ্রীমদ্ভাগবত প্রবচনসহ নানা আচার পালন করা হয়েছে। অন্যান্য দিনও প্রায় একই ধরণের কর্মসূপি পালন করা হবে। আগামী ২২ জুলাই ফিরতি রথযাত্রার মধ্যদিয়ে শেষ হবে ৯ দিনের রথযাত্রা উৎসব।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক:: সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান অনুষ্ঠান শ্রী শ্রী জগন্নাথদেবের রথযাত্রা মহোৎসবের ৫ম দিন বুধবার নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে অতিবাহিত হয়েছে। ইসকন মন্দির সিলেট আয়োজিত রথযাত্রা উৎসবে প্রতিদিনই ঘটছে মিলন মেলা। পালন করা হচ্ছে নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান। বুধবার অন্যান্য অনুষ্টানের মধ্যে ছিল আলোচনা সভা।

বিকালে ভক্তিবেদান্ত গীতা একাডেমি আয়োজিত আলোচনা সভায় আশির্বাদকের বক্তব্য দেন, বৃন্দাবন ইসকন কৃষ্ণ বলরাম মন্দির থেকে আগত শ্রীমৎ ভক্তি আশ্রয় বৈষ্ণব স্বামী মহারাজ। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সন্দ্বিপ কুমার সিনহা। এ সময় তিনি বলেন, সিলেট ইসকন মন্দির হচ্ছে ধর্মীয় সম্প্রীতির উৎকৃষ্ট স্থান। এখান থেকে মানুষ তার বিবেককে জাগ্রত করতে পারে। তিনি বলেন, দেশ আজ নানা ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদেরকেও এগিয়ে যেতে হবে। সামনে যাওয়া ছাড়া কোনো গতি নেই।

ইসকন সিলেটের অধ্যক্ষ নবদ্বীপ দ্বিজ গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারীর সভাপতিত্বে ও ইসকন সিলেট ইয়ুথ ফোরামের সাধারণ সম্পাদক দেবামৃত নিতাই দাসের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য দেন, সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক নিবাস চন্দ্র দাস, বিএডিসির উপপরিচালক সুপ্রিয় পাল, সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি জামান মনির, গীতা একাডেমির পরিচালক অশেষ কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী প্রমুখ।

এছাড়া সন্ধ্যা ও রাতে আরতি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ দিনের কর্মসূচির মধ্যে নাটক, সেমিনারসহ আরতী, হরিনাম সংকীর্ত্তন, মহাপ্রসাদ বিতরণ, কীর্তনখোলা, ভক্তিমূলক সঙ্গীত, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, শ্রীমদ্ভাগবত প্রবচনসহ নানা আচার পালন করা হয়েছে। অন্যান্য দিনও প্রায় একই ধরণের কর্মসূপি পালন করা হবে। আগামী ২২ জুলাই ফিরতি রথযাত্রার মধ্যদিয়ে শেষ হবে ৯ দিনের রথযাত্রা উৎসব।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর